Breaking News

মোহন বাগানে নতুন ফুটবল সচিব | বর্তমান




নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শুক্রবার মোহন বাগানের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় অ্যাকাউন্টস পাশ হল না। প্রায় সওয়া ঘণ্টা ব্যাপী আলোচনার পর সচিব অঞ্জন মিত্র জানান, ‘২০১৬-১৭ এবং ২০১৭-১৮ আর্থিক বর্ষের অ্যাকাউন্টস এখনও তৈরি নয়। যে ফার্মটি এর দায়িত্বে রয়েছে তারা কিছুদিন সময় চেয়েছে। আশা করি, দ্রুত তা পেয়ে যাব।’



এদিনের সভায় সহ-সভাপতি পদে অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল কার্তিক কুমার গাঙ্গুলির নাম ঘোষণা করেন সচিব। স্পেশাল ইনভাইটি হিসেবে নেওয়া হয়েছে শতবর্ষের অধিনায়ক শিশির ঘোষ, উত্তর কলকাতার কুমারটুলির প্রবীণ সদস্য সরোজ ব্যানার্জি এবং অ্যাডভোকেট অরবিন্দ সেনকে। পদত্যাগী ফুটবল সচিব সত্যজিৎ চ্যাটার্জির জায়গায় দায়িত্ব সামলাবেন মুখ্যমন্ত্রীর ছোটভাই স্বপন ব্যানার্জি। টেনিস সচিব করা হয়েছে শৈলেন ঘোষকে। মোহন বাগান ফুটবল ক্লাব ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের পাঁচ ডিরেক্টরের মধ্যে দু’জন (সহ-সচিব এবং অর্থ-সচিব) পদত্যাগ করলেও তা গৃহীত হয়নি। 



মুখ্যমন্ত্রীর ভাই ফুটবল সচিব হওয়ায় তাঁর অনুগামীরা মোহন বাগান ক্লাবের ভিতরেই আনন্দোৎসব পালন করেন। একাধিক বহিরাগত স্বাস্থ্যবান যুবক ধাক্কাধাক্কি করে তাঁর কাছে পৌঁছে মালা পরিয়ে দেন। সাংবাদিক সম্মেলন চলাকালীন এই ধরনের বহিরাগতরা কীভাবে ভিতরে ঢোকার অনুমতি পেলেন তা কেউই জানেন না। সন্ধ্যায় ঝড়বৃষ্টির মধ্যে আটকে পড়া প্রবীণ সমর্থকদের আলোচনা শুনে মনে হয়েছে, পদত্যাগী অর্থ সচিবের উপর কর্মসমিতির একাংশের পুঞ্জীভূত ক্ষোভকে সুচারুভাবে কাজে লাগিয়েছেন অভিজ্ঞ অঞ্জন মিত্র। অনেকেরই ধারণা, অর্থ-সচিবের জন্যই ক্রমশ দূরত্ব বেড়েছে সভাপতি এবং সচিবের। 



এদিন সচিব আরও জানান, ‘মোহন বাগান অ্যাথলেটিক ক্লাব ৪৫ লক্ষ টাকা দেবে মোহন বাগান ফুটবল ক্লাব ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডকে। এছাড়া রয়েছে পদত্যাগী সভাপতির দেওয়া এক কোটি টাকা এবং আসন্ন মরশুমে বিভিন্ন স্পনসরের অ্যাডভান্স বাবদ আরও এক কোটি টাকা। জিএসটি সহ একাধিক সমস্যার কারণে এখনই স্পনসরের নাম ঘোষণা বা তাদের থেকে অর্থ নেওয়া সম্ভব নয়। আমরা ফিনান্স কমিটির সদস্যদের বলেছি, ফুটবলারদের অ্যাকাউন্ট নম্বর এবং ফোন নম্বর দিতে। কার কত টাকা বকেয়া রয়েছে সেই তালিকাও দিতে বলা হয়েছে। এর আগেও একই কথা বলা হলেও ওরা কেন দেরি করছে তা বুঝতে পারছি না। সেই তালিকা পাওয়ার পরেই আমরা দ্রুত ফুটবলারদের বকেয়া মিটিয়ে দেব। সভাপতি কোন খাতে এক কোটি টাকা দিলেন তা নিয়েও রয়েছে ধোঁয়াশা। গত দু’টি মরশুমে অ্যাকাউন্টসের দায় আমার নয়। তাই তৃতীয় পক্ষকে দিয়ে অডিট করার ভাবনাও রয়েছে।’ আসন্ন মরশুমের জন্য ফুটবলারদের তালিকা করে দেওয়া হয়েছে। তা খতিয়ে দেখেই চুক্তি চূড়ান্ত হবে বলে জানান সচিব। 



টেনিস সচিব শৈলেন ঘোষ বলেন, ‘অ্যাকাউন্টসে রিপ্লের নামের পাশে কোনও অঙ্ক লেখা ছিল না। মিটিংয়ের পরে সভাপতি এক কোটি টাকা দেন। ২০১৬-১৭ এবং ২০১৭-১৮ মরশুম মিলিয়ে উনি ছ’কোটি একচল্লিশ লক্ষ টাকা দিয়েছেন ইউনাইটেড মোহন বাগান ফুটবল ক্লাব প্রাইভেট লিমিটেডকে। গত বছরের আগস্ট মাসে মোহন বাগান ফুটবল ক্লাব ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড গঠন করা হয়। তাহলে জুন ও জুলাই মাসের খরচ চলল কীভাবে?’



শুক্রবারের সভায় অ্যাকাউন্ট পাশ না হওয়ায় বার্ষিক সাধারণ সভার দিন কিংবা নির্বাচনের প্রক্রিয়া এখনই শুরু হচ্ছে না। এছাড়া আসন্ন ঘরোয়া ফুটবল মরশুমে কলকাতা প্রিমিয়ার লিগে মোহন বাগান দলের দেখভাল করবেন সচিবের অনুগামীরাই। দুর্গাপুজোর আগে তাই পদত্যাগী সহ-সচিব ও অর্থ-সচিবের পক্ষে মোহন বাগান ক্লাব প্রশাসনে ফেরা সম্ভব হবে না।
ফেসবুক ক্রমাগত আমাদের গ্রুপ শেয়ারিং ব্লক করে চলেছে, সুতরাং, খেলাধুলা সম্পর্কিত সমস্ত খবর সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ রাখুন, পোস্টটি পছন্দ হলে শেয়ার করতে অবশ্যই ভুলবেন না কিন্তু, লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজে
[pullquote align="normal"]
loading...
loading...
[/pullquote]

No comments