Breaking News

আগামী দু’বছর আই লিগ চ্যাম্পিয়ন দলই খেলবে এএফসি টুর্নামেন্ট | রাতুল ঘোষ - বর্তমান


ইন্ডিয়ান সুপার লিগ ও আই লিগের সংযুক্তিকরণ নিয়ে গত বছর ১৭ মে থেকে বিস্তর ধানাইপানাই চলছে। বাতাসে ভাসছে অসংখ্য ‘কাইট ফ্লায়িং নিউজ’। তবে ঘটনা হল, দুটো লিগ গত তিন বছর যেমন চলেছে, সেই ভাবেই আগামী দু’বছর চলবে। এখনই দুই লিগের সংযুক্তিকরণ হচ্ছে না। 

ফেডারেশন প্রেসিডেন্ট প্রফুল্ল প্যাটেল সর্বশেষ সাক্ষাৎকারে যা বলেছেন, তারপর মনে হয় না পরবর্তী আইএসএলে খেলার জন্য অতিরিক্ত মাত্রায় লালায়িত হবে কলকাতার দুই বড় ক্লাব মোহন বাগান ও ইস্ট বেঙ্গল। আগামী সোমবার এআইএফএফ সচিবের সঙ্গে দুই প্রধানের কর্মকর্তাদের আলোচনার পর বিষয়টি আরও পরিস্কার হবে।
কী বলছেন, ফেডারেশন প্রেসিডেন্ট প্রফুল্ল প্যাটেল? নিচে পর পর সেই বক্তব্য সাজিয়ে দেওয়া যাক। ১) আইএসএল চ্যাম্পিয়ন দল অদূর ভবিষ্যতে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কোনও স্লট পাবে না। আগামী দু’বছর আই লিগ চ্যাম্পিয়ন দলই খেলবে এএফসি কাপে কিংবা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে। ২) আইএসএল পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ করার পর দুই লিগের সংযুক্তিকরণ নিয়ে চূড়ান্ত রোড ম্যাপ তৈরি হবে। তার আগে নয়। ৩) আগামী দিনে ভারতে টপ টিয়ারে এটটাই লিগ হবে। তার নিচে থাকবে তিনটি ডিভিসন। তবে সেটা পরবর্তী দু’বছরের আগে নয়। এবার প্রশ্ন হল, কেন এই কথাগুলো এখন বলতে বাধ্য হচ্ছেন প্রফুল্ল প্যাটেল? এর নেপথ্যে আসল কারণ হল , নীতা আম্বানির মালিকানাধীন ফুটবল স্পোর্টস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড (এফএসডিএল) এবং আইএমজিআর সাফ জানিয়ে দিয়েছে ফেডারেশনকে যে, ‘ওয়ান সিটি, ওয়ান ফ্র্যাঞ্চাইজি টিম’ আইএসএলের প্রথম পাঁচ বছর সব পক্ষকেই মেনে চলতে হবে। কারণ, ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি নেওয়ার সময় চুক্তিপত্রে এই ব্যাপারটি সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে। কলকাতা থেকে আগামী দু’বছর এটিকে ছাড়া অন্য কোনও দল আইএসএলে খেলতে পারবে না। মোহন বাগানকে খেলতে হলে দুর্গাপুরে যেতে হবে। ইস্ট বেঙ্গলের হোম ভেন্যু হবে শিলিগুড়ি।
ঘটনা হল, মোহন বাগান ও ইস্ট বেঙ্গল তিনগুণ বাজেটে দল গড়ে এবং বিশাল অঙ্কের ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি দিয়ে কেন দুর্গাপুর কিংবা শিলিগুড়িতে খেলতে রাজি হবে? এতে কি লাভ হবে তাদের? দুটি বড় ক্লাবেরই জন্ম, শ্রীবৃদ্ধি এই কল্লোলিনী কলকাতায়। মূল ফ্যানবেসও এই শহরেই। সেক্ষেত্রে দুই বড় ক্লাবকে শিকড়চ্যুত করার কোনও অসৎ উদ্দেশ্য সমর্থন করা যায় না। তবে ফেডারেশন প্রেসিডেন্টের একটা বক্তব্যই কিছুটা গ্রহণযোগ্য। সেটা হল, মোহন বাগান, ইস্ট বেঙ্গলের খেলা দেখতে আগে গ্যালারি উপচে পড়ত। এখন দর্শক উপস্থিতিতে ভাঁটার টান লেগেছে। সম্প্রচার সত্ত্বের মালিকানা কিনেছে স্টার স্পোর্টস। দু’টি লিগই তারা দেখাবে। তবে আই লিগের ম্যাচে যে পরিমাণ ক্যামেরা থাকবে, তার দ্বিগুণ ব্যবহৃত হবে আইএসএলের ম্যাচগুলিতে। তাই স্টার স্পোর্টস চায় দুই প্রধানের সমর্থকরা যেন আগামী দিনে মাঠ ভরিয়ে তুলুন। ফাঁকা মাঠে সরাসরি ম্যাচ সম্প্রচার করতে স্টারের আপত্তি রয়েছে। তাই আগামী মরশুমে আই লিগ ঘিরেও মার্কেটিং ও প্রমোশন বাড়বে। যেহেতু আই লিগ চ্যাম্পিয়ন দল এএফসি টুর্নামেন্টে খেলবে তাই দুই বড় ক্লাবের এরপর আর কোনও আপত্তি থাকা উচিত নয়। কারণ, এটাই ছিল গত মিটিংয়ে প্রফুল্ল প্যাটেলের কাছে তাদের প্রধান জিজ্ঞাস্য! এএফসি’ও জানিয়ে দিয়েছে, ভারতের জন্য মহাদেশীয় টুর্নামেন্টে দু’টির বেশি স্লট এখন বরাদ্দ করা সম্ভব নয়। সুতরাং আই লিগই দেশের প্রধান লিগ থাকবে আগামী দু’বছর। আইএসএল যে রকম সিটি বেসড লিগ রয়েছে, তেমনই থাকবে।
ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন দলের জন্যও এএফসি লিগে একটা স্লট থাকবে। অর্থাৎ এবার ফেড কাপে চ্যাম্পিয়ন হলে মোহন বাগান বা বেঙ্গালুরু এফ সি’ও এএফসি কাপে খেলার সুযোগ পাবে আগামী মরশুমে। আইএসএল যেমন এএফসি’র ম্যাপের বাইরে ছিল, পরবর্তী দু’টি মরশুমেও তেমনই থাকবে।
ফেসবুক ক্রমাগত আমাদের গ্রুপ শেয়ারিং ব্লক করে চলেছে, সুতরাং, খেলাধুলা সম্পর্কিত সমস্ত খবর সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ রাখুন, পোস্টটি পছন্দ হলে শেয়ার করতে অবশ্যই ভুলবেন না কিন্তু, লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজে
[pullquote align="normal"]
loading...
loading...
[/pullquote]

No comments