Breaking News

এটিকে’কে জিতিয়ে ‘যুবভারতীর কিং’ রবি কিন | বর্তমান

এটিকে-১ (রবি কিন) : দিল্লি ডায়নামোজ-০



জয় চৌধুরি: শনিবার সকালে আইএসএল পরিচালন সংস্থার নিজস্ব মোবাইল সংস্থা থেকে প্রচারিত হয় সৌরভ গাঙ্গুলি রেকর্ডিং ম্যাসেজ। মহারাজ বলেন,‘রবি কিনকে দেখতে আজ রাতে যুবভারতীতে আসুন।’
দিল্লি ডায়নামোসের ম্যাচের আগে আয়ারল্যান্ডের এই স্ট্রাইকারকে সামনে রেখে প্রচার চালিয়েছিল এটিকে। ম্যাচের শেষ দিকে সেই প্রচারের সম্মান রাখলেন ৩৭ বছরের রবি কিন। মাঝমাঠ থেকে কোনার টমাসের লং বল হেডে নামিয়ে দেন পরিবর্ত বিপিন সিং। বলটি বুকে করে নামিয়ে নেন রবি কিন। তাঁর টার্নিংয়ে কেটে যান দিল্লি ডায়নামোসের দুই ডিফেন্ডার রোয়েলসন ও প্রতীক চৌধুরি। এরপর তাঁর কোনাকুনি শট অর্ণব দাশশর্মাকে পরাস্ত করে জালে জড়িয়ে যায় (১-০)। গ্যালারিতে থাকা এটিকে কর্তাদের মুখে তখন চওড়া হাসি। গোলের পর রবি কিনের দেড়খানা সামারসল্ট সল্টলেক স্টেডিয়ামে উপস্থিত দর্শকদের অনেক দিন মনে থাকবে। রবিবার থেকে এটিকে দলের চারদিনের ছুটি। এখন নিয়মিত দলের তিনজন ব্রিটিশ। একজন আইরিশ। চিফ কোচও ইংরেজ। সাপোর্ট স্টাফরা ইংল্যান্ডের। আপাতত ৩ জানুয়ারির (প্রতিপক্ষ এফসি গোয়া) আগে কোনও ম্যাচ নেই। তাই ক্রিসমাসের উৎসবে মাততে কেউ যাচ্ছেন দুবাই, কেউ বা লন্ডন। ক্রিসমাসের আগে তাই যুবভারতীর ‘কিং’ রবি কিন।


সেই সঙ্গে এটিকে’র সান্তাক্লজও হয়তো। তিনি ফিট হয়ে উঠতেই পরপর দু’টি ম্যাচ জিতে এটিকে দশম থেকে সপ্তম স্থানে উঠে এল। এটিকে’র পয়েন্ট ৬ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট। আইএসএলের প্রথম পর্বের শেষে ভালো জায়গায় থাকতে হলে পরবর্তী তিনটি ম্যাচে দু’টি জয় চাই এটিকে’র। নক- আউটে যাওয়ার লড়াইয়ে ভেসে থাকতে হলে বাকি মরশুমে রবি কিনের ফিট থাকাটা জরুরি। প্রথম হোম ম্যাচে পুনে সিটি এফসি’র বিরুদ্ধে ফ্রি-কিকে দুরন্ত গোল করেছিলেন বিপিন সিং। তাঁকে বসিয়ে এদিন প্রথম একাদশে জয়েশ রানেকে রাখেন এটিকে কোচ টেডি শেরিংহ্যাম। এদিন দেখা গেল, রবি কিন ও জয়েশের মধ্যে বোঝাপড়া গড়ে উঠেছে। এঁদের পাশে প্রায় তৃতীয় ফরোয়ার্ড হয়ে উঠছেন ডস স্যান্টোস ব্র্যাঙ্কো, টিমে যিনি জ্যাকুইনা বলে পরিচিত। এই ত্রিভুজ কম্বিনেশন থেকে গোটা ম্যাচে তিনটি ওপেন করে এটিকে। জ্যাকুইনা ৬৭ মিনিটে বাঁ দিক থেকে ঢুকে অবিশ্বাস্য মিস করেন। রবি কিনের বিরুদ্ধে এঁটে উঠতে পারছিলেন না প্রতীক চৌধুরি। কলকাতার বিরুদ্ধে ব্যথা নিরামক ইঞ্জেকশন নিয়ে নেমেছিলেন অর্ণব দাশশর্মা। তিনি এদিন তিনটি গোল বাঁচান। একটা সময়ে মনে হচ্ছিল প্রীতম-অর্ণবরা কলকাতার পয়েন্ট কেড়ে নেবেন। কিন্তু ৭৮ মিনিটে রবি কিনের গোলে এটিকে তিনটি মূল্যবান পয়েন্ট তুলে নিল। এটিকে’র এবারের ক্যাচ লাইন, ‘আমার বুকে এটিকে’। শনিবাসরীয় রাতের পর তা কিঞ্চিৎ বদলে বলাই যায় ‘কিং কিনের বুকে এটিকে’।

ফেসবুক ক্রমাগত আমাদের গ্রুপ শেয়ারিং ব্লক করে চলেছে, সুতরাং, খেলাধুলা সম্পর্কিত সমস্ত খবর সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ রাখুন, পোস্টটি পছন্দ হলে শেয়ার করতে অবশ্যই ভুলবেন না কিন্তু, লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজে
[pullquote align="normal"]
loading...
loading...
[/pullquote]

No comments