Breaking News

শচীনের বায়োপিকে গড়াপেটা বিতর্কও । আজকাল


ভারতে বলিউডের সঙ্গে ক্রিকেটের বন্ধুত্ব দীর্ঘ দিনের। বিভিন্ন সময়ে তার প্রমাণও মিলেছে। শচীনের বায়োপিক মুক্তির আগে আরও একবার তা সামনে এল। সেটাও খোদ শচীনের সৌজন্যে। ‘‌শচীন:‌ আ বিলিয়ন ড্রিমস’‌ তৈরির ক্ষেত্রে আমির খান তাঁকে অনেকাংশে সাহায্য করেছিলেন বলে জানিয়েছেন শচীন। আমির–সহ বলিউড অভিনেতাদের তিনি স্ক্রিনিংয়ে আমন্ত্রণ জানাবেন কি না, সেই প্রশ্নের জবাবেই শচীন বলেন, ‘‌নিশ্চয়ই। আমির অনেক পরামর্শ দিয়ে আমাকে সাহায্য করেছিল।’‌
ক্রিকেটারদের পাশাপাশি আমিরকে তিনি সবার আগে এই সিনেমা দেখার সুযোগ করে দিতে চান বলেও জানিয়েছেন শচীন। বলেন, ‘‌আমির আমার খুব ভাল বন্ধু। ওর সমস্ত সিনেমা আমি সবার আগে দেখার সুযোগ পেয়েছি। ফলে আমার বায়োপিকের ক্ষেত্রেও সেটাই চাইব।’‌
বায়োপিকে তাঁর জীবনের অনেক অজানা গল্প উঠে আসবে, তা আগেই জানিয়েছিলেন শচীন। তবে এটা তৈরির সময় তিনি বহুবার আবেগতাড়িত হয়ে পড়েছিলেন বলে জানিয়েছেন এদিন। বলেন, ‘‌অনেক ঘটনা স্মৃতির ঝাঁপি খুলে বেরিয়ে আসছিল। ২৪ বছর ভারতীয় দলের অঙ্গ ছিলাম। যেটা স্পেশাল। এই সময়কালে প্রায় প্রত্যেক সিরিজ, প্রত্যেক ম্যাচের সঙ্গে জড়িয়ে। কেরিয়ারের সেরা সময় থেকে খারাপ সময়, প্রত্যেকটা মুহূর্ত যেন বারবার মনে পড়ে যাচ্ছিল।’ ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ড সফরের সময় পিতৃবিয়োগ কেরিয়ারের অন্যতম কঠিন মুহূর্ত বলেও জানিয়েছেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, এই বায়োপিক বাবা রমেশ ও দাদা অজিতকে উৎসর্গ করতে চলেছেন শচীন। বিষয়টি নিয়ে মুখ না খুললেও এখানে বাস্তব ঘটনা তুলে ধরার বিষয়েই যে জোর দেওয়া হয়েছে, তা মনে করিয়ে দিয়েছেন শচীন। বলেন, ‘‌ছোটবেলায় বাসে, ট্রেনে যাত্রা করার সময় অনেক ধাক্কা খেতে হয়েছে। এমনও হয়েছে বাসে ভিড় থাকায় নির্দিষ্ট স্টপেজে বাস থেকে নামতেও পারিনি। এ সব ঘটনাগুলো কোনওরকম রঙ না চড়িয়েই রাখা হয়েছে।’‌
২৬ মে মুক্তি পাবে শচীনের বহুপ্রতীক্ষিত বায়োপিক। ইতিমধ্যেই কেরল ও ছত্তিশগড় সরকার এটাকে করমুক্ত ঘোষণা করে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শচীনকে। টুইটারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের মুহূর্তের ছবি পোস্ট করে তঁাকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন এই কিংবদন্তি। পরে এ বিষয়ে শচীন বলেন, ‘‌দিল্লিতে ছিলাম। তাই ভাবলাম ওঁকে বায়োপিকের বিষয়টা জানাই। শুনে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন। বলেছেন, প্রতিকূলতা সবক্ষেত্রেই থাকে। এখান থেকে অনেকেই লড়াইয়ের অনুপ্রেরণা পাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।’‌‌
বায়োপিকে তাঁর অনেক অজানা কথা উঠে আসবে, সেটা আগেই বলেছেন তেন্ডুলকার। কিন্তু বায়োপিককে ঘিরে তিনি অনেক অজানা কথা বলেছেন এক সাক্ষাৎকারে। ‘‌২০১২ সালে রবি (রবি ভাগচন্দা, প্রযোজক) যখন বায়োপিকের প্রস্তাব দেয়, আমার প্রথম জবাব ছিল, আমি কিন্তু অভিনয় করতে পারব না। পরে পুরো বিষয়টা বুঝে সম্মতি দিতে অনেকটা সময় লেগে গিয়েছিল।’ ২০০০ সালে গড়াপেটা–বিতর্ক ভারতীয় ক্রিকেটকে নাড়িয়ে দিয়েছিল। অতীতে কখনই সেই বিতর্ক নিয়ে মুখ খোলেননি শচীন। বায়োপিকে অবশ্য বিষয়টি আছে। যা নিয়ে শচীনের প্রতিক্রিয়া, ‘‌সে সময় জীবনের ওঠাপড়া লেগেই ছিল। সেটা খেলোয়াড়দের জীবনের অঙ্গ। যা জানতাম সেটাই বলেছি। প্রত্যেকে সেটা দেখতেও পাবে।’‌ নিজেকে নিয়ে খুব বেশি কথা বলতে পারেন না। তাই তিনি পরিবারের সদস্য, আত্মীয়, সতীর্থদের এগিয়ে দিয়েছিলেন। বলেন, ‘‌মা, দিদি, দাদা, অঞ্জলি আমার জীবনের কথা বলেছে।’‌ একটা পারিবারিক ভিডিও রয়েছে। বায়োপিকে সেটাও তুলে ধরা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শচীন।‌

‌উপলক্ষ বায়োপিক। স্ত্রী অঞ্জলিকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করে এলেন শচীন। ছবি:‌‌ পিটিআই
ফেসবুক ক্রমাগত আমাদের গ্রুপ শেয়ারিং ব্লক করে চলেছে, সুতরাং, খেলাধুলা সম্পর্কিত সমস্ত খবর সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ রাখুন, পোস্টটি পছন্দ হলে শেয়ার করতে অবশ্যই ভুলবেন না কিন্তু, লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজে
[pullquote align="normal"]
loading...
loading...
[/pullquote]

No comments